Breaking

Sunday, August 23, 2020

Life Science Questions Answers pdf: জীবন বিজ্ঞানের অধ্যায় ভিত্তিক প্রশ্ন ও উত্তর PDF মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের জন্য এবং সমস্ত চাকুরীর পরীক্ষার জন্য

Life Science Questions Answersপ্রিয় ছাত্র ছাত্রী আজ আমরা তোমাদের জন্য  জীবন বিজ্ঞানের অধ্যায় ভিত্তিক গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন ও উত্তর প্রস্তুত করেছি। মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ও চাকরির পরীক্ষার জন্য যারা প্রস্তুতি নিচ্ছ আজকের পোস্টটি তাদের জন্য। আমরা সমস্ত সরকারি চাকরি পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য বিভিন্ন বিষয়ের সম্পূর্ণ সিলেবাস ভিত্তিক স্টাডি নোট ও কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স আমাদের ওয়েবসাইটে দিয়ে থাকি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে এবং নিয়মিত মক টেস্ট নিয়ে থাকি যেগুলো অংশগ্রহণ করে নিজেকে যাচাই করে নিতে পারবে। জীবন বিজ্ঞানের অধ্যায় ভিত্তিক প্রশ্ন ও উত্তর PDF নিয়ে এসেছি যেগুলো Wbcs, Wbpsc, Wbp, Ssc, Icds, Food SI এই সমস্ত পরীক্ষার উপযুক্ত। মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী যারা আছো অবশ্যই ডাউনলোড করো। তাই আর দেরি না করে Life Science Questions Answers Pdf টি ডাউনলোড করে পড়তে শুরু করে দাও ও বন্ধুদের মধ্যে শেয়ার করে আমাদের উৎসাহিত করো।
Life Science Questions Answers pdf
Life Science Questions Answers pdf

আজ জীবন বিজ্ঞানের কোশ বিভাজন ও জীবনের প্রবাহমানতা সম্পূর্ণ অধ্যায় টির প্রশ্ন ও উত্তর দেওয়া হয়েছে। 
নীচে “Download Now” বাটনে ক্লিক করে আজকের Life Science Questions Answers PDF টি ডাউনলোড করুন 
➤ কিছু নমুনা প্রশ্ন উত্তর দেওয়া হলো, সম্পূর্ণ pdf টি ডাউনলোড করেনিন

১০১. অঙ্গজ জনন কাকে বলে?
উঃ যে প্রকার জনন পদ্ধতিতে জীবদেহের কোন অংশ বা অংশাংশ বা অঙ্গ বা অঙ্গাংশ মাতৃদেহ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে কোষ-বিভাজন ও বৃদ্ধির মাধ্যমে উপযুক্ত পরিবেশ সদৃশ অপত্য জীবের সৃষ্টি করে, সেই প্রকার জননকে অঙ্গজ জনন বলে।

১০২. অঙ্গজ জনন কয় প্রকার ও কী কী?
উঃ দুই প্রকার। স্বাভাবিক অঙ্গজ জনন এবং কৃত্রিম অঙ্গজ জনন।

১০৩. স্বাভাবিক বা প্রাকৃতিক অঙ্গজ জনন কয় প্রকার ও কী কী?
উঃ আট প্রকার।

১। বাডিং বা কোরকোদগম
২। ফ্রাগমেণ্টেশান বা খণ্ডীভবন
৩। বুলবিল দ্বারা
৪। ফিশান বা বিভাজন পদ্ধতি
৫। অস্থানিক মুকুলের সাহায্যে।
৬। পরিবর্তিত কাণ্ড দ্বারা
৭। মূলের সাহায্যে
৮। পাতার দ্বারা

১০৪. কৃত্রিম অঙ্গজ জনন কয় প্রকার ও কী কী?
উঃ চার প্রকার।
১। শাখা কলম
২। দাবাকলম
৩। গুটি কলম
৪। জোড়কলম

১০৫. জোড়কমল কী?
উঃ কৃত্রিম পদ্ধতিতে অঙ্গজ-জননের একটি বিশেষ উল্লেখযোগ্য পদ্ধতি হল জোড়কলম। প্রধানতঃ প্রজাতির উচ্চ গুণমাণ বর্ধিত ও বজায় রাখার জন্য জোড়াকলমের প্রচলন ক্রমবর্ধমান। জোড়াকলম পদ্ধতিতে দুটি জনিতৃ উদ্ভিদের প্রয়োজন হয়। এই পদ্ধতিতে অভীষ্ট উন্নতমানের উদ্ভিদের কাণ্ডের কিছু অংশ কিংবা মুকুল বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় অন্য একটি উদ্ভিদ অর্থাৎ দ্বিতীয় জনিতৃ উদ্ভিদের কাণ্ডে জুড়ে দেওয়া হয়।

১০৬. সিয়ন (Scion) কী?
উঃ জোড়াকলম পদ্ধতিতে যে গাছের অংশটি জোড়া বা লাগানো হয় তাকে সিয়নবা পরশাখী বলে।

১০৭. স্টক (Stock) কী?
উঃ জোড়াকলম পদ্ধতিতে যার উপর গাছের অংশটি লাগানো বা জোড়া হয় তাকে স্টক বলে।

১০৮. কয়েকপ্রকার জোড়কলমের উল্লেখ করো।
উঃ মুকুল জোড়কলম, মুকুট জোড়কলম, জিহ্বা জোড়কলম, কীলক জোড়কলম ইত্যাদি।

১০৯. কৃত্রিম অঙ্গজ জননের তাৎপর্যগুলি উল্লেখ করো।
উঃ ১। নির্দিষ্ট দোষ-গুণ-বৈশিষ্ট্য বজায় রাখতে কৃত্রিম অঙ্গজ-জনন উল্লেখযোগ্যভাবে সাহায্য করে অর্থাৎ কৃত্রিম অঙ্গজ-জননে নির্দিষ্ট গুণসম্পন্ন ফুল ও ফলের গাছ বংশানুক্রমে পাওয়া যায়।

২। বীজবিহীন কলা, আনারস, আঙ্গুর ইত্যাদি ফলের গাছ ও জবা, গোলাপ প্রভৃতি ফুলের গাছে কৃত্রিম উপায়ে অঙ্গজ-জননে অপত্য উদ্ভিদের সৃষ্টি হয়।

৩। আদা, হলুদ, গোল আলু প্রভৃতি উদ্ভিদে কৃত্রিম উপায়ে অঙ্গজ-জননের সাহায্যে অপত্য সৃষ্টি হয়।

৪। আম, পেয়ারা প্রভৃতি উদ্ভিদে কৃত্রিম অঙ্গজ-জননে কলমের সাহায্যে উৎপন্ন উদ্ভিদে দু-এক বছরের মধ্যেই ফল ধারণ করে

৫। অল্পায়াসেই কৃত্রিম অঙ্গজ-জননে অপত্য উদ্ভিদ সৃষ্টি করা সম্ভব।

৬। সম্ভাব্য ঝুঁকি কৃত্রিম অঙ্গজ-জননে নেই বললেই চলে।

১১০. অঙ্গজ-জননের সুবিধাগুলি উল্লেখ করো।
উঃ ১। জনিতৃ ও অপত্য উদ্ভিদ সমবৈশিষ্ট্যযুক্ত হয়ে থাকে।
২। অঙ্গজ জননে একজাতীয় বহু সংখ্যক উচ্চমানের উদ্ভিদ সৃষ্টি করা সম্ভব।
৩। বিশুদ্ধ গুণাবলীর ধারাবাহিকতা অক্ষুণ্ণ থাকে।
৪। যে সকল উদ্ভিদের ফুল ও ফল হয় না, তাদের বংশবিস্তারের একমাত্র মাধ্যম অঙ্গজ জনন।
৫। অঙ্গজ-জননে উৎপন্ন উদ্ভিদে অল্প সময়ে ফুল ও ফল জন্মায়।
৬। অনুকূল পরিবেশে অঙ্গজ-জনন একটি অতি সরল পদ্ধতি।

১১১. অঙ্গজ-জননের অসুবিধাগুলি উল্লেখ করো।
উঃ ১। অঙ্গজ-জননের প্রধান অসুবিধে হল নতুন বৈশিষ্ট্যযুক্ত এবং উন্নত উদ্ভিদ জন্মায় না।

২। উৎপন্ন উদ্ভিদগুলির অভিযোজন ক্ষমতা হ্রাস পাওয়ায় প্রতিকূল ও নতুন পরিবেশে অভিযোজনে অসমর্থ হয়ে পড়ে; ফলে প্রজাতির অবলুপ্তির প্রবল সম্ভাবনা দেখা যায়।

৩। অঙ্গজ-জননে স্বল্প স্থানে অসংখ্য উদ্ভিদের জন্ম হওয়ার ফলে আলো, বাতাস ও খাদ্যের জন্য সংগ্রামে অধিকাংশ উদ্ভিদই দুর্বল হয়ে পড়ে এবং অকালে মৃত্যুবরণ করে।

১১২. অযৌন জনন বলতে কী বোঝ?
উঃ যে বিশেষ ধরণের জনন প্রক্রিয়ায় দুটি ভিন্নধর্মী জননকোষ বা গ্যামেটের মিলনবিহনে দেহকোষবিভাজিত হয় কিংবা রেণু বা স্পোরের সাহায্যে অপত্য জীব সৃষ্টি হয় তাকে অযৌন-জনন বলে।

১১৩. অযৌন জননের অপর নাম কী?
উঃ অযৌন-জননে দেহকোষ বিভাজিত হয়ে অপত্য কোষ সৃষ্টি হয় বলে এই প্রক্রিয়ায় সোমাটোজেনিক বা ব্লাস্টোজেনিক জনন নামেও পরিচিত।

১১৪. অযৌন জনন কোথায় দেখা যায়?
উঃ অধিকাংশ জীবাণু, ইউডোগোনিয়াম, ইউলোথ্রিক্স প্রভৃতি শৈবালে, মিউকর, পেনিসিলিয়াম প্রভৃতি ছত্রাকে এবং অ্যামিবা, প্যারামেসিয়াম, ইউগ্লিনা প্রভৃতি বহু এককোষী প্রাণিতে অযোন-জনন দেখা যায়।

১১৫. অযৌন জননের উপায়গুলি কী কী?
উঃ বিভাজন ও রেণুর সাহায্যে।

১১৬. চলরেণু বা Zoospore কী?
উঃ যে সকল রেণু স্থান থেকে স্থানান্তরে সিলিয়া ও ফ্ল্যাজেলার সাহায্যে চলতে পারে তাদের চলরেণু বলে।

১১৭. অচলরেণু বা Aplanospore কী?
উঃ যে সকল রেণু স্থান থেকে স্থানান্তরে চলতে পারে না এবং যাদের সিলিয়া ও ফ্ল্যাজেলা নেই তাদের অচলরেণু বলে।

১১৮. কোনিডিয়াম কী?
উঃ অচল রেণুর দ্বারা নস্টক নতুন উদ্ভিদ সৃষ্টি করে। স্থলজ ছত্রাকের জননেও এর বিশিষ্ট ভূমিকা রয়েছে। ছত্রাকের এই ধরণের রেণুকে বলে কোনিডিয়াম।

১১৯. হোমোস্পোর ও হেটোরোস্পোর বলতে কী বোঝ?
উঃ রেণুস্থলী বা স্পোরাঞ্জিয়ামে উৎপন্ন রেণু বা স্পোরগুলি যদি একই রকমের হয় তবে তাদের হোমোস্পোর বা সমরেণু এবং ভিন্ন রকমের হলে তাদের হেটারোস্পোর বা অসমরেণু বলে।


১২০. অযৌন-জননের সুবিধাগুলি উল্লেখ করো।
উঃ ১। কম সময়ে অধিক সংখ্যক জীবের সৃষ্টি হয়।
২। অযৌন-জননে জনিতৃজীব এবং অপত্যজীব সমবৈশিষ্ট্যসম্পন্ন হয়ে থাকে।

১২১. অযৌন-জননের অসুবিধাগুলি উল্লেখ করো।
উঃ ১। অযৌন-জননে উৎপন্ন জীবগুলির মধ্যে প্রকরণের উৎস কম হওয়ায় নতুন প্রজাতির সৃষ্টি দেখা যায় না।
২। একই বৈশিষ্ট্যযুক্ত হওয়ায় অভিব্যক্তি দেখা যায় না।
৩। অতি সহজেই অবলুপ্তি ঘটে।

১২২. যৌন-জনন বলতে কী বোঝ?
উঃ যে জনন প্রক্রিয়ায় দুটি জনিতৃজীবের দেহ থেকে সৃষ্ট দু প্রকারের দুটি জননকোষ বা গ্যামেটের মিলনের ফলে অপত্যজীবের সৃষ্টি হয়, তাকে যৌন জনন বলে।

১২৩. যৌন জননের একক কী?
উঃ জননকোষ বা গ্যামেট।

১২৪. Conjugation বা সংযুক্তি বলতে কী বোঝ?
উঃ যে অনুন্নত ধরণের যৌন-জনন পদ্ধতিতে গ্যামেট বা জননকোষ দুটির আকৃতি গঠনে পার্থক্য দেখা না গেলেও একই প্রজাতিভুক্ত জীব অস্থায়িভাবে মিলিত হয়ে তাদের নিউক্লিয় পদার্থের বিনিময় ঘটিয়ে অপত্যজীব সৃষ্টি করে তাকে কনজুগেশান বা সংযুক্তি বা সংশ্লেষ বলে।

১২৫. Conjugant Ex-conjugant বলতে কী বোঝ?
উঃ সংশ্লেষে অংশগ্রহণকারী জীব দুটিকে কনজুগ্যাণ্ট বলে। আর সংশ্লেষের পরিসমাপ্তিতে বিচ্ছিন্ন জীবদ্বয়কে বলে এক্স-কনজুগ্যাণ্ট।

১২৬. সিনগ্যামী বলতে কী বোঝ?
উঃ সাধারণতঃ বহুকোষী জীবে এই প্রকার যৌন জনন পদ্ধতি দেখা যায়। এই ক্ষেত্রে গ্যামেটের মাধ্যমে জনন-প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়। দুটি যৌনকোষের মিলন পদ্ধতিকে সিনগ্যামী বলে।

১২৭. সিনগ্যামী কয় প্রকার ও কী কী?
উঃ সিনগ্যামী তিন প্রকার।
১। আইসোগ্যামী
২। অ্যানাইসোগ্যামী
৩। ঊগ্যামী

১২৮. আইসোগ্যামী (Isogamy) কী?
উঃ দুটি গ্যামেট যখন আকৃতি, প্রকৃতি এবং একই গুণবিশিষ্ট হয়, তখন ওদের আইসোগ্যামেট এবং ওদের মিলনকে আইসোগ্যামী বলে।

১২৯. অ্যানাইসগ্যামী (Anisogamy) কী?
উঃ যখন গ্যামেটগুলি আকৃতি প্রকৃতি এবং স্বভাবের দিক থেকে সম্পূর্ণ আলাদা, তখন ওদের পুরুষ এবং স্ত্রী গ্যামেট বলা হয়। এই ধরণের গ্যামেটগুলিকে অ্যানাইসোগ্যামেট বলে এবং এদের মিলনের ফলে যে জনন প্রক্তিয়া সম্পূর্ণ হয় তাকে অ্যানাইসোগ্যামী বলে।

১৩০. উগ্যামী (Ugamy) কী?
উঃ দুটি জননকোষের একটি ছোট ও সচল অর্থাৎ শুক্রাণু, অপরটি বড় ও গমনে অক্ষম অর্থাৎ ডিম্বাণুর মিলনের ফলে যে যৌন-জনন সম্পাদিত হয় তাকে ঊগ্যামী বলে।

১৩১. Fertilization বা নিষেক বলতে কী বোঝ?
উঃ পুং এবং স্ত্রী জননকোষের স্ব-বৈশিষ্ট্য বজায় রেখে মিলিত হলে ঐ মিলনক-পদ্ধতিকে ফারটিলাইজেশান বা নিষেক বলে।

১৩২. সপুষ্পক উদ্ভিদের যৌনজনন অঙ্গ কোনটি?
উঃ পুষ্প বা ফুল।

১৩৩. একটি আদর্শ ফুলে কয়টি স্তবক? কী কী?
উঃ চারটি স্তবক থাকে। বৃতি, দলমণ্ডল, পুং-স্তবক এবং স্ত্রী-স্তবক।

১৩৪. অত্যাবশকীয় স্তবক বলতে কী বোঝ?
উঃ অ্যানড্রোসিয়াম বা পুং স্তবক ও গাইনেসিয়াম বা স্ত্রী-স্তবককে অতাবশ্যকীয় বা অপরিহার্য স্তবক বলে। কারণ এই স্তবক দুটি জননকোশ গঠন করে প্রতক্ষভাবে জননকার্য সম্পন্ন করে।

১৩৫. ডিম্বকের অংশগুলির নাম লেখ।
উঃ ডিম্বকে ডিম্বকনাড়ী, ডিম্বকনাভি, ভ্রূণপোষক, ডিম্বকত্বক, ডিম্বকরন্ধ্র, ডিম্বকমূল, ভ্রূণস্থলী ইত্যাদি দেখা যায়।

১৩৬. ডেফিনিটিভ নিউক্লিয়াসে কতগুলি ক্রোমোজোম থাকে?
উঃ 2n বা ডিপলয়েড সংখ্যক ক্রোমোজোম থাকে।

১৩৭. Double Fertilization বা দ্বি-নিষেক বলতে কী বোঝ?
উঃ গর্ভাধানের পর অবশিষ্ট পুংজনন নিউক্লিয়াসটি কিছুদুর অগ্রসর হয়ে ভ্রূণস্থলীর কেন্দ্রস্থিত ডেফিনিটিভ নিউক্লিয়াস্‌ বা সেকেণ্ডারী নিউক্লিয়াসের সঙ্গে মিলিত হলে, তাকে Double Fertilization বা দ্বি-নিষেক বলে।

১৩৮. হ্যাপ্লয়েড ক্রোমোজোম বা n-সংখ্যক ক্রোমোজোম কোথায় দেখা যায়?
উঃ ১। টিউব নিউক্লিয়াসে
২। জনন নিউক্লিয়াসে
৩। দুটি পুংজনন কোষে
৪। সাইনারজিডস বা সহকারী কোষে
৫। ওভাম বা ডিম্বাণুতে
৬। অ্যান্টিপোডাল সেল বা প্রতিপাদ কোষে।

১৩৯. ডিপ্লয়েড ক্রোমোজোম বা 2n-সংখ্যক ক্রোমোজোম কোথায় দেখা যায়?
উঃ ১। ডেফিনিটিভ নিউক্লিয়াসে
২। ভ্রূণাণুকোষে

১৪০. ট্রিপ্লয়েড ক্রোমোজোম বা 3n-সংখ্যক ক্রোমোজোম কোথায় দেখা যায়?
উঃ এণ্ডোস্পার্ম বা সস্যতে।

ডাউনলোড করুন কোশ বিভাজন ও জীবনের প্রবাহমানতা pdf
File Details:-

File Name:- Life Science MCQ [www.study4crack.com]
File Format:- Pdf
Quality:- High
File Size:-  2 Mb
File Location:- Google Drive
Download Now


জীবন বিজ্ঞানStudy4Crack is the best place to prepare for any competitive exams. Its provides you competitive exam special study materials, Current Affairs. Study Materials are based on West Bengal Police exams, Indian Railway exams, West Bengal PSC exam, Civil Services exams, Indian post Job Exams, Ssc, Upsc, Rbi, Group-D exams or any kind of State or Central Govt. exams.  Read and Download Daily, Monthly and Yearly Current Affairs From Study4Crack and Prepare for various competitive exams like banking, wbcs, upsc, wbp, psc, ssc. You Can also download GK, Gi, Math Question-papers, Syllabus,  etc in Pdf format, free of cost on our website. Visit Study4Crack to get job notifications, Current Affairs and Study materials and update yourself. Today We Provide জীবন বিজ্ঞানের অধ্যায় ভিত্তিক প্রশ্ন ও উত্তর PDF মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের জন্য এবং সমস্ত চাকুরীর পরীক্ষার জন্য.

No comments:

Post a Comment

If you have any doubts. Please let me know